ঢাকা, মঙ্গলবার, ৫ চৈত্র ১৪২৫, ১৯ মার্চ ২০১৯
Risingbd
সর্বশেষ:

রোমানিয়ান ভাষায় অনূদিত হাসানআল আব্দুল্লাহর কবিতা

রাইজিংবিডি ডেস্ক : রোমানিয়ান ভাষায় কবি ও শব্দগুচ্ছ সম্পাদক হাসানআল আব্দুল্লাহ’র নয়টি কবিতা প্রকাশিত হয়েছে সে দেশের ‘পোয়েট্রি’ পত্রিকায়।

একাত্তরে যেভাবে পালিত হয়েছিল বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন

শাহ মতিন টিপু: একাত্তরের ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৫২ বছরে পা রেখেছিলেন। অগ্নিঝরা মার্চের উত্তাল দিনেও জাতি মহান নেতার জন্মদিন উদযাপন করেছিলেন।

মাথার খুলির সঙ্গে ছিল লম্বা চুল

রফিকুল ইসলাম মন্টু: পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে দেশ রক্ষায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বাংলার দামাল ছেলেরা। মার্চে মুক্তি সংগ্রামে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সারাদেশ।

দুধ-মিষ্টির গ্রাম ‘গৈলা’

খায়রুল বাশার আশিক : বরিশালের গৌরনদী বাসস্ট্যান্ড থেকে একটি পিচঢালা পথ সোজা পশ্চিমে চলে গেছে পয়সারহাটের দিকে। সে পথে যেতেই বাসের হেল্পার বাস থামিয়ে চিৎকার করে জানান দিবে, গৈলা-গৈলা… কারা নামবেন নামেন। একটি ছোট্ট বাজার, এ বাজারের নাম গৈলা।

স্কুলে ক্লাসের ঘণ্টাধ্বনি, কারাগারে গণহত্যা

রফিকুল ইসলাম মন্টু : পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে দেশ রক্ষায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বাংলার দামাল ছেলেরা। মার্চে মুক্তি সংগ্রামে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সারাদেশ।

বাহারি ফুলে সুশোভিত ক্যাম্পাস

ইমানুল সোহান : পূর্ব আকাশে সূর্যের ঝলকানি, হলের বারান্দায় শালিকের ডাকাডাকি! সেই ডাকে ঘুম ভাঙে হাজারো শিক্ষার্থীর। দরজা কিংবা জানালা দিয়ে তাকালেই চোখে পড়ে সূর্যমুখীর হাসি।

গ্রীষ্মের দুপুর এসেছিল শোক হয়ে

রফিকুল ইসলাম মন্টু: পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে দেশ রক্ষায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বাংলার দামাল ছেলেরা। মার্চে মুক্তিসংগ্রামে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সারাদেশ।

উচ্ছ্বাসের সিংহাসনে তারা সবাই রাজা

মির্জা তারেক: দিনটি ছিল বাঁধভাঙ্গা উচ্ছ্বাসের। তৈরি করা হলো ‘যেমন খুশি তেমন উপভোগ করো’ সিংহাসন। তাতে তারাই রাজা, তারাই প্রজা।

বলেশ্বর তীরের জনপদ কাঁদে নীরবে

পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর কবল থেকে দেশ রক্ষায় ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন বাংলার দামাল ছেলেরা। মার্চে মুক্তি সংগ্রামে উত্তাল হয়ে উঠেছিল সারাদেশ।

মার্চে বদলে যায় রেডিও টেলিভিশন কেন্দ্রের নাম

শাহ মতিন টিপু: একাত্তরের অগ্নিঝরা মার্চে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ২ ও ৩ তারিখ সর্বাত্মক হরতাল পালিত হয়। ৪ তারিখ ছিল দেশব্যাপী লাগাতার হরতালের তৃতীয় দিন।

‘আমার সোনার বাংলা’ জাতীয় সঙ্গীত হলো যেভাবে..

শাহ মতিন টিপু: আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালোবাসি’ গানটি যেদিন জাতীয় সঙ্গীত নির্বাচিত হলো সেই দিনটি ছিল ৩ মার্চ।

প্রথম পতাকা উত্তোলনের ঐতিহাসিক দিন

শাহ মতিন টিপু : অগ্নিঝরা মার্চের দ্বিতীয় দিনে ওড়ানো হয়েছিল মানচিত্র খচিত স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম পতাকা। এই দিনে ঢাকাসহ পুরো দেশই ছিল বিক্ষুব্ধ জনপদের প্রতিচ্ছবি।
 

যে ফুলে সেজে ওঠে বসন্ত

খায়রুল বাশার আশিক : ‘আহা, আজি এ বসন্তে, কত ফুল ফোটে, কত পাখি গায়...’ কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর এই বসন্তের প্রেমে পড়ে লিখেছিলেন এমন গান।

দখিনা বাতাসে আমের মুকুলের মৌ মৌ ঘ্রাণ

এম জসিম উদ্দিন: ‘আয় ছেলেরা, আয় মেয়েরা/ ফুল তুলিতে যাই/ ফুলের মালা গলায় দিয়ে/ মামার বাড়ি যাই/ ঝড়ের দিনে মামার দেশে/ আম কুড়াতে সুখ/ পাকা জামের মধুর রসে/ রঙিন করি মুখ।’

বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী নানজীবা

জুনাইদ আল হাবিব : দুরন্ত কৈশোর পাড়ি দেয়ার আগেই উজ্জ্বল তারুণ্যের হাতছানি। একাধারে ট্রেইনি পাইলট, উপস্থাপিকা, নির্মাতা, লেখক, সাংবাদিক, ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর, বিএনসিসি ক্যাডেট অ্যাম্বাসেডর, ইউনিসেফ বাংলাদেশের তরুণ প্রতিনিধি এবং বিতার্কিক তিনি।