ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আশ্বিন ১৪২৪, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭
Risingbd
সর্বশেষ:

রোহিঙ্গা সংকট : প্রতিবাদমুখর সাহিত্যাঙ্গন

সাইফ বরকতুল্লাহ : মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলছে রোহিঙ্গা নিধন। সেখানে সেনাবাহিনীর নিপীড়ন থামছেই না। তাণ্ডব চলছে একের পর এক গ্রামে।

ছোটগল্প : কাচকি মাছ ও নীল ঘাসফুল

||মুস্তাফিজ শফি||

​‘কাচকি মাছ, তোমার কি আজ মন খারাপ?’

‘তাহলে কথা বলছ না কেন?’

একটি বৃক্ষ অথবা ফুলের ঝরে পড়া || তাপস রায়

একে একে চলে যাচ্ছেন সেইসব মানুষ যাঁরা নিজ কর্মগুণে মহীরূহে পরিণত হয়েছেন। সমাজে তাদের অবদান শাখা-প্রশাখার মতো বিস্তৃত।

একচক্ষু হরিণীরা : নবম পর্ব

চৌদ্দ
সেদিন ‘জরুরি কাজ আছে’ বলে আহিরের বাসা থেকে বেরিয়ে আসি আমি। আহিরও আর আটকায়নি। সেদিনের পর আজ গেলাম আহিরের বাসায়, প্রায় সাত মাস পর। এর মধ্যে আহির একবারও বাসায় যাওয়ার কথা বলেনি।

রিজওয়ান: বোধ ও মননের বিশ্লেষণ

মুম রহমান || ডেভিড মামেট নাট্যরচনা প্রসঙ্গে লিখেছেন: ‘যখন তুমি থিয়েটারে আসো, তোমাকে এটা বলায় উৎসাহী হতে হবে যে, আমরা সবাই এখানে এসেছি একটা যোগাযোগ সৃষ্টি করতে, খুঁজে বের করতে যে এই দুনিয়াটা কী ছাইপাশ হচ্ছে!

অধিবাস : ইমদাদুল হক মিলনের ফটোগ্রাফিক উপন্যাস

মোজাফ্‌ফর হোসেন : একইসঙ্গে পাঠকপ্রিয় এবং জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন। আমাদের দেশে ‘জনপ্রিয় সাহিত্যিক’ ‘সিরিয়াস সাহিত্যিক’ নন বলে যে কথার চল আছে, তা মিলনের ক্ষেত্রে খাটে না।

একচক্ষু হরিণীরা: অষ্টম পর্ব

ফোন বাজছে। সেই সাথে ফজরের আজানও ভেসে আসছে। আসসালাতু খাইরুম মিনান নাউম...

লেখকের মৃত্যু || মোজাফ্‌ফর হোসেন

বর্তমান সময়ের লিডিং কথাসাহিত্যিক শরিফ চৌধুরী। তার লেখায় ফুটে উঠেছে সমাজের নিম্নবর্গীয় মানুষ এবং সাবলটার্নদের কথা। তিনি মানবতাবাদী লেখক।

একই চক্কর || নাসরীন জাহান

আজকের আবহাওয়া খুব ভালো। মাথা ঘুরিয়ে লোকটিকে দেখি। সামনে জলের স্রোত, টকটকে লাল সূর্যের অর্ধেকটাই খেয়ে ফেলেছে সমুদ্র,

ঘরজুড়ে জ্যোৎস্না || সেলিনা হোসেন

ছোটবেলা থেকে শুনে আসা দোজখ সম্পর্কিত ধারণা শাজাহানের মনে গেঁথে আছে। এখনও ওর কাছের দুই নারীর চেহারায় দোজখ দেখতে পায় এবং ভাবলেই ওর মন থেকে দোজখের ভীতি একদম উবে যায়।

শওকত ওসমানের অগ্রন্থিত গল্প

নদীর পার থেকে ঘরে ফিরছিল কলিম নাগার্চি।

বর্ষার আকাশ মেঘে থমথম করছে। কিন্তু বৃষ্টি আসবে না এখন। মেঘের রঙে তার কোনো আভাস নেই। ধীর পদে হাঁটতে লাগল কলিম।

একচক্ষু হরিণীরা : সপ্তম পর্ব

চল্লিশ বছর আগে ঘটা ঘটনাটিতে কিছু শূন্যস্থান ছিল। পেটের পাশে দীর্ঘ এবং গভীর ক্ষতচিহ্নটি কেন সৃষ্টি হয়েছিল, টানা তিন বছর রাস্তায় রাস্তায় ভেল্কি দেখানো বাবা সেদিন কেন অমন অমনোযোগী হয়ে গিয়েছিলেন, সেসব পরিষ্কার হয়ে গেল।

ছোটগল্প || মধ্য বয়সের প্রেম

মনি হায়দার : হাফিজুর রহমান প্রেমে পড়লেন অফিস কলিগ মণিকার। মণিকা দেখতে খুব আহামরি না হলেও হালকা গড়নের দেহসৌষ্ঠব চোখে লাগার মতো।

প্রেসক্রিপশন || ফিরোজ আলম

গফুর মিয়া ডাক্তারের চেম্বারের বাইরে এসে বেঞ্চে ধপাস করে বসে পড়ল। মাথার উপর ভনভন করে ঘুরতে থাকা বৈদ্যুতিক পাখার বাতাসে প্রেসক্রিপশনটা তিরতির করে কাঁপছিল।

প্রকাশক দ্বারা যে বইগুলো প্রত্যাখ্যাত হয়েছিল

|| মুম রহমান ||

বড় ভাই, এবার কী করব বলুন? বই তো লিখে ফেলেছি!

ছাপতে দিন।